মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৭ জুন ২০১৯

(International Monetary Fund-IMF) আইএমএফ এর একটি প্রতিনিধিদল দুর্নীতি দমন কমিশনের মাননীয় চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদের সঙ্গে দুদক প্রধান কার্যালয়ে দেশের দুর্নীতি দমন ও সুশাসনের বিষয়ে আলোচনা করেন।


প্রকাশন তারিখ : 2019-06-27

এসময় প্রতিনিধি দলটির উদ্দেশ্যে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, দুদক অনিয়ম-দুর্নীতি প্রতিরোধ এবং সরকারি কার্যপদ্ধতির রি-ইঞ্জিনিয়ারিং এর মাধ্যমে দেশে সুশাসন নিশ্চিতে নিরলসভাবে কাজ করছে। সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সেবা প্রক্রিয়ায় প্রাতিষ্ঠানিক সংস্কারের মাধ্যমে বিজনেস প্রসেস রি-ইঞ্জিনিয়ারিং এর জন্য প্রতিষ্ঠান ভিত্তিক সুপারিশমালা প্রণয়ন করে সরকারের নিকট প্রেরণ করছে। সরকারও কোনো কোনো ক্ষেত্রে কার্যকর ব্যবস্থা নিচ্ছে।

এক প্রশ্নের জবাবে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, দুদক সরকারের তরফ থেকে সকল প্রকার সহযোগিতা পাচ্ছে। দুদক আর্থিক এবং ফাংশনালি সম্পূর্ণ সবাধীনভাবে কাজ করছে , তবে দুদকের সক্ষমতার কিছুটা অভাব রয়েছে। তাই কমিশনের মানবসম্পদের আরো প্রশিক্ষণ প্রয়োজন। এ প্রসঙ্গে তিনি JICA (জাইকা) ও UNODC (ইএনওডিসি) এর বিভিন্ন সহযোগিতার কথা উল্লেখ করেন।
অপর এক প্রশ্নের জবাবে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, দুদকের কাজে কেউ হস্তক্ষেপ করে না । হস্তক্ষেপ করার কোনো সুযোগও নেই। আইনের বলেই দুদক সকল প্রকার চাপের ঊর্ধ্বে রয়েছে।

তিনি বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে নিখুঁত এনফোর্সমেন্টের কিছুটা সমস্যা রয়েছে। তবে কমিশন একটি কার্যক্রম এনফোর্সমেন্ট ইউনিট গঠনের জন্য আইন প্রণয়ন করছে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, গণসচেতনতা বিকশিত করার জন্য কমিশন সুশীলসমাজসহ বিভিন্ন অংশীজনদের সঙ্গে পরামর্শ করে কৌশলপত্র প্রণয়ন করেছে। এছাড়া কমিশন দেশের প্রায় ২৮ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সততা সংঘ গঠন করেছে , স্থানীয় সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের নিয়ে প্রায় ৩,৭০০ দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি গঠন করেছে॥ এসব কমিটি দুর্নীতি প্রতিরোধ ও উত্তম চর্চার বিকাশে বহুমুখী কার্যক্রম পরিচালনা করছে। কমিশন দেশের প্রায় ২০০০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সততা স্টোর (বিক্রেতাবিহীন দোকান) গঠন করেছে। কমিশনের এসব কার্যক্রমের মনিটরিংয়ের বিষয়টিও তিনি তাদেরকে অবহিত করেন।

তিনি বলেন , ২০৩০ সালের সর্বোচ্চ পপুলেশন ডিভিডেন্ড পেতে হলে সক্ষম মানবসম্পদ সৃষ্টির কোনো বিকল্প নেই। তাই মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতের কোনো বিকল্প নেই। এ বিষয়েও কমিশন কাজ করছে।
আইএমএফ প্রতিনিধি দলটি দুদকের কার্যক্রমের বিভিন্ন দিক আলোকপাত করে বলেন দুদকের প্রতিরোধমূলক কার্যক্রম সত্যিই প্রশংসনীয়।

IMF এর এশিয়া ও প্যাশিফিক ডিপার্টমেন্ট এর ডিভিশনাল চিফ Daisaku Kihara এর নেতৃত্বে সিনিয়র ইকোনোমিস্ট JIRI JONAS , ইকোনোমিস্ট MUHAMMAD IMAM HUSSAIN প্রমুখ।


Share with :

Facebook Facebook